Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

১ জুন থেকে চট্টগ্রামে গরু বেচাকেনা বন্ধ

চট্টগ্রাম, ২২ মে: আগামী ১ জুন থেকে দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম গরুর বাজার চট্টগ্রামের সাগরিকা গরুর বাজারে অনিদিষ্টকালের জন্য গরু বেচাবিক্রি বন্ধ করে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে চট্টগ্রাম গবাদি পশু ব্যবসায়ী সংগ্রাম পরিষদ।

চট্টগ্রামে গবাদি পশু ব্যবসায়ী সমিতির সাড়ে তিন কোটি টাকা আত্মসাতের প্রতিবাদে এই কর্মসূচি দিয়েছে তারা। মঙ্গলকার দুপুরে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে এক সাংবাদিক সম্মেলনে পরিষদের নেতারা বলেন, “আগামী সাত দিনের মধ্যে প্রতারক চক্রের সদস্যের গ্রেফতার ও চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন (চসিক) এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় হস্তক্ষেপ না করলে অনির্দ্দিষ্টকালের জন্য গরু বেচাকেনা বন্ধ করে দেয়া ছাড়া উপায় থাকবে না।”

মাংস ব্যবসায়ীর ছদ্মবেশী ১৮ জনের একটি প্রতারক সিন্ডিকেট সমিতির এই টাকা আত্নসাত করেছে বলে দাবি করেন সমিতির নেতারা।

সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম গবাদি পশু ব্যবসায়ী সমবায় সমিতির সভাপতি আবু ইউসুফ, সাধারণ সম্পাদক কাজি রফিকুল ইসলাম, ফারুক আলমসহ অন্যরা।

গবাদি পশু ব্যবসায়ীদের টাকা আত্নসাতের ঘটনায় বিবিরহাট গরুর বাজারে গত ৫ মে থেকে গরু বেচাকেনা বন্ধ রয়েছে। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে ওই বাজার চার কোটি টাকার রাজস্ব প্রাপ্তি থেকে।

গবাদি পশু ব্যবসায়ীদের এই প্রতিবাদ কর্মসূচিকে পুঁজি করে এক শ্রেণীর মাংস ও চামড়ার ব্যবসায়ী ইতোমধ্যে ওইসব পণ্যের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে।

সাংবাদিক সম্মেলনে জানানো হয়, গরু ব্যবসায়ীরা ভিটাবাড়ি বন্ধক রেখে টাকা লগ্নির মাধ্যমে ব্যবসা পরিচালনা করতে গিয়ে প্রতারণার খপ্পরে পড়ে এখন চরম বিপাকে পড়েছেন। এর মধ্যে গরু ব্যবসায়ীদের কেউ স্বীকৃতিও দিচ্ছে না। প্রতি গরু ব্যবসায়ীকে যদি চসিক ট্রেড লাইসেন্স প্রদান করতো, তাহলে এই খাত থেকে চসিক প্রতি বছর কোটি টাকার রাজস্বও পেতো বলে জানালেন ব্যবসায়ীরা।

সংগ্রাম পরিষদ নেতারা জানান, কোনো ব্যাংকই গরু ব্যবসায়ীর একাউন্টকে ব্যবসার আওতায় স্বীকৃতি দিচ্ছে না। অথচ দেশে প্রতিটি গরু প্রবেশের ক্ষেত্রে সরকার নির্ধারিত রাজস্ব পাঁচশ টাকা উল্লেখ থাকলেও পাঁচশ ৬০ টাকা হারে রাজস্ব প্রদান করতে হচ্ছে। এ হারে চট্টগ্রামে দৈনিক দুই হাজার গরু বেচাকেনা হচ্ছে। এসব গরু-মহিষ বেচাকেনা থেকে সরকার প্রতিদিনই কমপক্ষে ১১ লাখ টাকা রাজস্ব পেয়ে থাকে। অথচ চরম প্রতিকূল অবস্থায় ব্যবসা করতে গিয়ে এরই মধ্যে সাড়ে সাড়ে কোটি টাকা প্রতারণার শিকারের পাশাপশি মাংস ব্যবসায়ী ছদ্মবেশি সন্ত্রাসীদের প্রতিনিয়তই হুমকির মুখে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে আর ব্যবসা পরিচালনা করতে পারছে না।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট