Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

তামিমকে পেটলা আর মুশফিককে বাটুল নামে ডাকা হয়: সাকিব

ঢাকা, ২১ মে: আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বাংলাদেশের উল্লেখ করার মতো যদি কোনো ক্রিকেটার থেকে থাকেন, তাহলে তিনি সাকিব আল হাসান। মাগুরার সন্তান সাকিবকে নিয়ে বিশ্ব ক্রিকেটাঙ্গনে আলোচনার যেমন অন্ত নেই, তেমনি সমালোচনাও কম হয়নি। ওয়ানডে ও টেস্ট ক্রিকেটে তার শ্রেষ্ঠত্ব মেনে নিয়েছে পুরো ক্রিকেট বিশ্ব। বিপিএলের পর এবার আইপিএলেও দুর্দান্ত পারফরমেন্সে টি-২০ ক্রিকেটের সেরা অলরাউন্ডারের দরজায়ও কড়া নাড়ছেন সাকিব আল হাসান। কিন্তু ক্রিকেট নয়, ফুটবল এবং বার্সেলোনার ভক্ত বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার। সতীর্থদের কাছে ময়না খ্যাত সাকিব ক্রিকইনফোর সঙ্গে সাক্ষাৎকারে জানালেন তার সম্পর্কে আরো অনেক অজানা তথ্য।

সেরা অলরাউন্ডারের পেছনে আপনার লুকানো রহস্য কী? জানতে চাইলে সাকিব বলেন, “কঠোর পরিশ্রম, সঠিক কাজ করতে থাকা এবং দলের জন্য কাজে লাগার চেষ্টা করা। কিশোর বয়সের বড় একটি সময় বোর্ডিং স্কুলে কাটিয়েছেন। ঘর থেকে দূরে থাকার সুবিধা…। আপনাকে ধীরে ধীরে স্বাবলম্বী করে তুলবে। কারণ অনেক কিছুই আপনাকে নিজে করতে হবে। কিন্তু যদি আপনি নিজের পরিবারের সঙ্গে থাকেন তবে আপনার হয়ে এসব কাজগুলো তারা করে দেবে।

আপনি আপনার অভিভাবকের জন্য কখনো কিছু রান্না করেছেন? যখন তারা ঢাকায় আসতেন? জবাবে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার বলেন, “আমি শুধু ডিম ভাজতে পারি।”

আপনার সম্পর্কে এমন কিছু বলুন যা আপনার ভক্তরা জানে না। সাকিব বলেন, “আমার ভেতরে যা রয়েছে, আমি সবসময় সেটাই বলি। কিন্তু কিছু কিছু পরিস্থিতিতে এটা নিয়ন্ত্রণ করতে চেয়েও আমি পারি না। আসলে আমি খুবই আবেগপ্রবণ।”

বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক থাকা অবস্থায় আপনি কখনো মেজাজ হারিয়েছেন? সাকিব-আমি মনে করতে পারি ২০০৭ বিশ্বকাপের আগে আমাদের দেশের প্রাক্তন ক্রিকেটারদের উদ্দেশে আমি কিছু মন্তব্য করেছিলাম। সে সময় তারা আমার কঠোর সমালোচনা করেছিলেন। আর আমি খুব বাজেভাবে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছিলাম। তবে এখন আমি এর জন্য অনুতপ্ত। তখন আমার কাছে যা ঠিক মনে হয়েছিল আমি তাই করেছি। কিন্তু এখন আমি আরো পরিণত এবং আমার চিন্তা-ভাবনায়ও অনেক পরিবর্তন এসেছে।’

পাঁচ উইকেট না-কি শতক কোনটিকে এগিয়ে রাখবেন? সাকিব বলেন, ‘নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্টে আমি ৭ উইকেট পেয়েছিলাম এ নিয়ে আমি সত্যিই খুব উৎফুল্ল ছিলাম। কিন্তু আমি সবসময়ই পাঁচ উইকেট শিকারের চেয়ে সেঞ্চুরিকে এগিয়ে রাখব। কারণ আমাকে বোলিং এর জন্য খুব একটা পরিশ্রম করতে হয় না। কিন্তু ব্যাটিংয়ের সময় এ চিত্রটা এমন থাকে না।’ ক্রিকেটের বাইরে আপনার অন্য কোনো শখ রয়েছে কী? সাকিব বলেন, ‘এটা হয়তো আশ্চর্যজনক মনে হতে পারে, তবে আমি ক্রিকেটের চেয়ে ফুটবলকেই বেশি ভালোবাসি। ইউরোপিয়ান ফুটবলের ম্যাচ দেখার জন্য আমি গভীর রাত পর্যন্ত অপেক্ষা করি। আর বার্সেলোনার খেলা আমি সাধারণত মিস করি না। যদি হোটেলে টিভি বা সেই চ্যানেল না থাকে, তবে আমি ইন্টারনেটে তা অনুসরণ করি। তবে এখন পর্যন্ত নু-ক্যাম্পে আমার যাওয়া হয়নি। সম্ভবত আগামী বছর আমি এটা পূরণের চেষ্টা করব। আমি বার্সা ও রিয়ালের মধ্যকার ম্যাচ দেখতে চাই।

আপনার ডাক নাম তো ‘ময়না’। এই নামটি কে দিয়েছে? সাকিব-‘আমি তখন হাইপারফরমেন্স সেন্টারে ছিলাম। এখান থেকে বাংলাদেশ জাতীয় দলে অনেক ক্রিকেটার এসেছেন। ক্যাম্প চলাকালীন হঠাৎ একদিন নাঈম ভাই কোনো কারণ ছাড়াই আমাকে ময়না নামে ডাকা শুরু করলেন। তবে আমার নামের চেয়েও জাতীয় দলের অনেক ক্রিকেটারের আরো মজার নাম রয়েছে। যেমন তামিম ইকবালকে আদর করে পেটলা (ভোঁজনরসিক) এবং মুশফিকুর রহিমকে বাটুল (ছোট) নামে ডাকা হয়।

আপনি কি মনে করেন বাংলাদেশী সমর্থকরা ক্রিকেটের জন্য সবচেয়ে আবেগপ্রবণ? সাকিব বলেন, ‘আমার মনে হয় বাংলাদেশ ও ভারতের দর্শকরা ক্রিকেটের জন্য সবচেয়ে আবেগপ্রবণ।’ মিডিয়ার কোন প্রশ্নটি নিষিদ্ধ করা উচিৎ বলে মনে করেন? সাকিব-‘সামনের ম্যাচে কী হবে?

শাহরুখকে আপনি কী শেখাতে পারেন? সাকিব জবাবে বলেন, ‘সম্ভবত আমি তাকে স্পিন বল করা শেখাতে পারি। কিন্তু তার সামনে আমি আরো লাজুক হয়ে পরি। কারণ তাকে বলার জন্য আমি সঠিক কথা খুঁজে পাই না।’

ভক্তদের কাছ থেকে রক্তে লেখা পত্র পেয়েছিলেন। এটা কী সত্য? সাকিব-‘দু-একবার এমন হয়েছে। আমার মনে হয় মেয়েরা সত্যিই পাগল। একবার আমি এক রেস্টুরেন্টে খাচ্ছিলাম। সেময় একটি মেয়ে টিস্যুতে লেখা প্রেমপত্র আমার কাছে পাঠায়। আমি এখনও জানি না সে কে ছিল, এমনকি কখনো তাকে দেখিও নি।’

এমন কোনো ম্যাচ রয়েছে যেখানে কোনো ক্রিকেটার ম্যাচের ভাগ্য পাল্টে দিয়েছেন, যেটা আপনাকে অনুপ্রাণিত করে? সাকিব বলেন, ‘শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ২০১১ বিশ্বকাপের ফাইনালে ধোনি এবং গৌতম গম্ভিরের ইনিংস। ম্যাচের অবস্থাটা এমন ছিল যেটা আপনি ভাষায় প্রকাশ করতে পারবেন না। কিন্তু এ দুজন সে চাপ নিয়েও খেললেন অসাধারণ ইনিংস। আমি পরিস্থিতি বুঝে পারফর্ম করতে পছন্দ করব।’ বাংলাদেশে ঘুরতে এলে পর্যটকরা কোন জিনিসটি অবশ্যই করে থাকে?সাকিব-‘শর্ষে ইলিশ পরখ না করে যেতে চায় না। এটা সত্যিই মাছের চমৎকার একটি আইটেম।’ অলিম্পিকে কোন খেলা দেখার জন্য আপনি টিকিট কিনতে চাইবেন? সাকিব-‘১০০ মিটারের ফাইনাল। যদিও লন্ডন অলিম্পিকের জন্য এখনো আমি কোনো টিকিট পাইনি, তবে যদি আমি সেখানে পৌঁছে যাই, আমি নিশ্চিত কোনো একজন আমাকে টিকিট পেতে সাহায্য করবেই।’

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট