Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

কন্ডিশনিং ক্যাম্প আয়োজন করায় বিসিবিকে ধন্যবাদ: মাশরাফি

ঢাকা, ২০ মে: বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের যেকোনো আন্তর্জাতিক সিরিজের আগে অবধারিত একটি প্রশ্ন ক্রিকেটাঙ্গণের সামনে চলে আসে। আর সেটা হচ্ছে নড়াইল এক্সপ্রেস মাশরাফি সুস্থ আছেন তো! কারণ তার কপালটাই যে খারাপ। ইনজুরির জন্য বহু সিরিজ মিস করেছেন তিনি। অনেক লম্বা সময় ঘরে বসে দর্শক হয়ে খেলা দেখেছেন। আর সবচেয়ে জ্বালা ধরানো বিষয় হচ্ছে নিজ মাটিতে বিশ্বকাপে অংশ নিতে পারেননি ওই ইনজুরির করণে।

 

রোববার যখন মিরপুরে জিম্বাবুয়ে সফরের আগে অনুশীলন শুরু হয় তখন মাশরাফির সুস্থতার বিষয়টি বার বার সামনে চলে আসে। মাশরাফি যে কখন ইনজুরি আক্রান্ত হবেন তা কেউ জানে না। সে কারণেই রোববার মিরপুরে মাশরাফির অনুশীলনের দিকেই মিডিয়ার ফোকাসটা ছিল বেশি। অনুশীলন শেষে তাই মিডিয়া মাশরাফির কথা শুনতেই বেশি আগ্রহ দেখিয়েছে।

 

দলের সেরা পেসার রুবেল ইনজুরিতে আক্রান্ত এ ব্যাপারে মাশরাফি বলেন, আসলে সব সময় এটা দলের জন্য খুবই খারাপ একটা দিক। বিশেষ করে টপ লাইনের বোলাররা ইনজুরিতে থাকলে দলে যারা আছেন তাদের ব্যাপারে নির্বাচকরাই ঠিক করবেন। তবে যারা দলে আছেন তারা পারফর্ম করে চেষ্টা করবে ভালো কিছু করার জন্য। আবুল হোসেন রাজু আছেন। এমনকি আল-আমিন নামে নতুন একজন পেস বোলার আছেন। সবারই চেষ্টা থাকবে অভিজ্ঞ পেসারদের ঘাটতিটা পুষিয়ে দেবার। সব মিলিয়ে পার্ট অব গেম যে পেসাররা ইনুরিতে পড়বেন এবং আবার কামব্যাকও করবেন। তাই যারা দলে আছেন তাদের সঙ্গে অভিজ্ঞদের একটা ভালো প্রতিযোগিতা চলবে।

 

এশিয়া কাপের পর ক্রিকেটাররা আবারো একসাথে হওয়া প্রসঙ্গে মাশরাফি বলেন, আসলে আমরা সবাই একটা পারিবারে মতো। এমনকি আমরা সবাই সেভাবে থাকার চেষ্টা করি। তাছাড়া আবার অনেকদিন পর অনুশীলন করছি। বলতে পারেন আমরা সবাই বছরটা ধরেই এক সঙ্গে থাকতে হয়। তবে অনেক বড় গ্যাপের পর সবাইকে এক সঙ্গে কাছে পেয়ে খুবই ভালো লাগছে।

 

মাশরাফি আরো বলেন, অনেকদিনই তো খেলার বাইরে ছিলাম। তবে আমি ব্যক্তিগতভাবে প্রায় অনুশীলন করেছি। কারণ নিজের শরীরটা ঠিক রাখার জন্য। তবে টি-২০ বিশ্বকাপের আগে আমাদের এই কন্ডিশনিং ক্যাম্প আয়োজন করায় ক্রিকেট বোর্ডকে ধন্যবাদ জানাই। কারণ আমরা সবাই খেলার বাইরে ছিলাম। তাই সবাই এই কন্ডিশনিং ক্যাম্পকে খুবই পজিটিভ হিসেবেই নিয়েছে এবং জিম্বাবুয়েতে টি২০ সিরিজ খেলায় আমরা এই কন্ডিশনিং ক্যাম্পটা দারুণ সহায়ক হবে।

 

জিম্বাবুয়ে সফরের গুরুত্ব সম্পর্কে মাশরাফি বলেন, খেলার কথা বলতে পারবো না, তবে টি২০ বিশ্বকাপের আগে আমাদের কিছু ম্যাচ খেলার প্রয়োজন ছিল। তামিম ধরেন পুরো আইপিএলে একটা ম্যাচও খেলতে পারেনি। তাছাড়া গতবার যতোগুলো ম্যাচ খেলেছিল সাকিব আইপিএলে। ও কিন্তু এবার ওই পরিমাণে ম্যাচ খেলতে পারেনি। সেদিক বিবেচনা করলে জিম্বাবুয়ে সিরিজটা টি২০ বিশ্বকাপের জন্য ভালোই প্রস্ত্ততি-পর্ব বলতে পারেন।

 

জাতীয় ক্রিকেট দল এখন কোচহীন এটা কিভাবে দেখছেন, এমন প্রশ্নের জবাবে মাশরাফি বলেন, ‘একটা দলের মেরুদন্ডই বলতে পারেন। তবে এদিকটা আমাদের ভাবার প্রয়োজন আছে বলে আমি মনে করি না। কারণ এদিকটা ভাববেন, যারা বোর্ডে আছেন তারাই। আমাদের কাজ হচ্ছে ভালো পারফর্ম করা। তাই আমরা ভালো প্রাকটিস শুরু করেছি। বিশেষ করে টি২০ ক্রিকেট খেলোয়াড়দের প্রচুর পরিমাণে ফিট থাকতে হয়। তাই আমাদের ফিটনেস ট্রেনিংটা শুরু হওয়ায় এদিক থেকে ভালোই হয়েছে।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট