Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

জনকল্যাণে বিত্তবানরা এগিয়ে আসুন

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সার্বিক উন্নয়ন ও জনকল্যাণ নিশ্চিত করতে সরকারি উদ্যোগে সহায়তা দিতে লায়ন্স ক্লাবের সদস্যসহ বিত্তবানদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।
গতকাল শনিবার রাজধানীর একটি হোটেলে লায়ন্স ক্লাব ইন্টারন্যাশনালের ২৫তম মাল্টিপল ডিস্ট্রিক্ট কনভেনশনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, আন্তরিক প্রয়াস সত্ত্বেও সম্পদের সীমাবদ্ধতার কারণে সরকারের একার পক্ষে সব সমস্যা সমাধান করা সম্ভব নয়। এ জন্য সমাজের বিত্তবানদের একইভাবে এগিয়ে আসতে হবে। শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ এক সময় সন্ত্রাসবাদ, জঙ্গিবাদ ও দুর্নীতির দেশ হিসেবে পরিচিত ছিল। বর্তমান সরকার শক্ত হাতে এসব সামাজিক অপরাধ দূর করে দেশকে ওইসব অভিশাপ থেকে মুক্ত করতে সক্ষম হয়েছে।
তিনি বলেন, জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসবাদ, দুর্নীতি দমন, দারিদ্র্য বিমোচন ও নারীর ক্ষমতায়নসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে ব্যাপক সাফল্যের জন্য বাংলাদেশ বর্তমানে বিশ্বে অনুকরণীয় আদর্শে পরিণত হয়েছে এবং এসব সাফল্য আমাদের ধরে রাখতে হবে। জনগণের
কল্যাণ নিশ্চিত করতে লায়ন্স ক্লাব ইন্টারন্যাশনালের ভূমিকার প্রশংসা করে শেখ হাসিনা বলেন, এ ক্লাব ৯৪ বছর ধরে ২০৬টি দেশে সেবামূলক কর্মসূচি পরিচালনা করছে। তিনি বলেন, লায়ন্স ক্লাব ইন্টারন্যাশনাল জাতিসংঘের ঘোষণা বাস্তবায়নে ২০২০ সালের মধ্যে বিশ্বব্যাপী অন্ধত্ব মোচনের জন্য নিরলসভাবে কাজ করছে।
এ কর্মসূচির আওতায় লায়ন্স ক্লাব প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর অন্ধত্ব মোচনের পাশাপাশি নিজস্ব হাসপাতালের মাধ্যমে ঢাকাসহ দেশব্যাপী স্বাস্থ্যসেবা প্রদানে বাংলাদেশে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে।
এছাড়া লায়ন্স ক্লাব শিশু স্বাস্থ্যসেবা, বল্গাড ব্যাংক পরিচালনা, শিক্ষা বিস্তার, দারিদ্র্য বিমোচন, কর্মসংস্থান, প্রতিবন্ধীদের পুনর্বাসন, শিক্ষার্থীদের বৃত্তিপ্রদান ও জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবেলায় কাজ করে যাচ্ছে।
শেখ হাসিনা বলেন, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মানুষের মৌলিক অধিকার ও জীবনমান রক্ষাকে সবকিছুর ওপরে স্থান দিয়েছিলেন। এসব অধিকার ও মৌলিক অধিকারগুলো সমুন্নত রাখা রাষ্ট্রের দায়িত্ব বিবেচনা করে তিনি সংবিধানে অন্তর্ভুক্ত করেছেন।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, তার সরকার জনগণের দোরগোড়ায় নাগরিক সুবিধা পেঁৗছে দিতে বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার ১৯৯৬-২০০১ মেয়াদকালে সারাদেশে ১৮ হাজার কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপনের কর্মসূচি গ্রহণ করেছিল। প্রতিহিংসার বশবর্তী হয়ে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার ক্ষমতায় এসে চালু ক্লিনিকগুলো বন্ধ করে দেয়। ফলে প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলের মানুষ স্বাস্থ্যসেবা থেকে বঞ্চিত হয়। তিনি বলেন, এবার দায়িত্ব গ্রহণের পর বর্তমান সরকার ওইসব বন্ধ হওয়া কমিউনিটি ক্লিনিকগুলো ফের চালুর উদ্যোগ গ্রহণ করে। দেশব্যাপী ১১ হাজার কমিউনিটি ক্লিনিক এখন চালু রয়েছে।
শেখ হাসিনা বলেন, সরকারের পাশাপাশি লায়ন্স ক্লাবগুলোর মতো বেসরকারি সংস্থাগুলো গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে সপ্তাহে দু’একদিন কমিউনিটি ক্লিনিকগুলো ব্যবহার করতে পারে।
তিনি বলেন, সরকার সরকারি হাসপাতালগুলোর সেবার মান বাড়াতে নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। অধিকাংশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ৩১ থেকে ৫০ শয্যায় উন্নীত করা হয়েছে এবং সব জেলা হাসপাতাল ২৫০ শয্যায় উন্নীত করা হচ্ছে।
তিনি বলেন, উপজেলা পর্যন্ত সব হাসপাতালে ওয়েব ক্যামেরা ও ইন্টারনেট সংযোগ দেওয়া হয়েছে। মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ২৪ ঘণ্টা স্বাস্থ্যসেবা দেওয়ার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। তাছাড়া ক্লিনিকগুলোর মাধ্যমে টেলিমেডিসিন সুবিধা প্রতিটি গ্রামে পেঁৗছে দেওয়ার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, শিশু মৃত্যুহার হ্রাসে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতির জন্য বাংলাদেশ জাতিসংঘের এমডিজি এওয়ার্ড এবং স্বাস্থ্যসেবা খাতে ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহারের স্বীকৃতি হিসেবে সাউথ-সাউথ এওয়ার্ড লাভ করেছে।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, সামাজিক নিরাপত্তাবলয়ের আওতায় তার সরকার বিধবাভাতা, বয়স্কভাতা, স্বামী পরিত্যক্ত, মুক্তিযোদ্ধা এবং প্রতিবন্ধীদের কল্যাণে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ২০১৪ সালের মধ্যে দেশকে নিরক্ষতার অভিশাপ থেকে মুক্ত করতে সরকার ছাত্রছাত্রীদের বিনামূল্যে পাঠ্যবই দিচ্ছে।
এ জন্য ১ হাজার কোটি টাকার শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট তহবিল গঠন করা হয়েছে।
কাউন্সিল সভাপতি একেএম রেজাউল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে লায়ন্স ক্লাবের সাবেক পরিচালক শেখ কবির হোসেন, মোসলেম আলী খান, ইন্টারন্যাশনাল ডাইরেক্ট এনডোসি কাজী আকরাম উদ্দিন আহমেদ ও কনভেনশন সভাপতি স্থপতি নিখিল সি গুহ বক্তৃতা করেন। অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীকে লায়ন্স ক্লাবের মানবতার সেবায় বৈশ্বিক ও সম্মানসূচক পদক দেওয়া হয়।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট