Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

দিনার নিখোঁজ মামলায় আসামি জামান সিলেটে তোলপাড়

 ছাত্রদল নেতা ইফতেখার আহমদ দিনার নিখোঁজ মামলায় আসামি করা হয়েছে সিলেটের প্রভাবশালী ও আলোচিত বিএনপি নেতা এডভোকেট শামসুজ্জামান জামানকে। দিনার নিখোঁজ ঘটনার সঙ্গে জামান জড়িত বলে অভিযোগ করেছেন দিনারের স্ত্রী প্রিন্সিলা পারভীন পিংকি। ঢাকার উত্তরা থানায় করা এ মামলা নিয়ে সিলেট বিএনপিতে তোলপাড় চলছে। জামানের অনুসারীরা দাবি করেছেন, রাজনীতি থেকে আবারও বিএনপি’র ত্যাগী নেতা  এডভোকেট জামানকে ‘একঘরে’ করে রাখতে এ মামলা করা হয়েছে। অথচ দিনার নিখোঁজ হওয়ার পর তার পরিবার সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে দাবি করেছিলেন, দিনারকে ঢাকা থেকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা ধরে নিয়ে গেছে। ইফতেখার আহমদ দিনার সিলেট ছাত্রদলের প্রভাবশালী নেতা। নগরীর উপশহরে ছাত্রদলের সবচেয়ে বড় গ্রুপটি দিনার গ্রুপ নামে পরিচিত। দিনারের শ্বশুর সিলেট জেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আবদুল গফফার। এম ইলিয়াস আলীর দীর্ঘদিনের পরীক্ষিত সহযোগী হিসেবে পরিচিত এডভোকেট আবদুল গফফার, এডভোকেট শামসুজ্জামান জামান ও সিলেট জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম সহ-সাধারণ সম্পাদক ইফতেখার আহমদ দিনার। মার্চের শেষ দিকে ছাত্রদল কর্মী শওকত খুনের ঘটনার পর এর দায় দায়িত্ব এসে পড়ে দিনারের ওপর। এই খুনের মামলা মাথায় নিয়ে সিলেট ছাড়েন তিনি। সঙ্গে ছিলেন তার সহকর্মী জুনায়েদ। ৩রা এপ্রিল ঢাকা থেকে নিখোঁজ হন ইফতেখার আহমদ দিনার। ৬ই এপ্রিল সিলেটে এক সংবাদ সম্মেলনে দিনারের স্ত্রী প্রিন্সিলা পারভীন পিংকি অভিযোগ করেছিলেন, দিনারকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা ধরে নিয়ে গেছে। ওই সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন এম ইলিয়াস আলী। ওই সময় পিংকি থানায় জিডি কিংবা মামলা করতে গেলে পুলিশ তাদের অভিযোগ আমলে নেয়নি। তবে শেষ দিকে একটি জিডি নিয়েছিল। এ অবস্থায় ১৭ই এপ্রিল দিনারের মতো ঢাকা থেকে হঠাৎ নিখোঁজ হয়ে যান বিএনপি’র কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এম ইলিয়াস আলী। এরপর কিছুটা হলেও দিনারের ঘটনাটি চাপা পড়ে যায়। ইলিয়াসের জন্য সিলেটে দুর্বার আন্দোলন শুরু হয়। এই আন্দোলনে একদিকে জেলা বিএনপি’র শীর্ষ নেতা হিসেবে এডভোকেট আবদুল গফফার নেতৃত্ব দিচ্ছেন। ওদিকে এডভোকেট শামসুজ্জামান নিজেই আরেকটি আন্দোলন গড়ে তুলেন। এডভোকেট শামসুজ্জামান নিখোঁজ বিএনপি নেতা ইলিয়াসকে ফিরিয়ে দেয়ার দাবিতে সিলেটে স্বেচ্ছাসেবক দলের পক্ষে হরতাল কর্মসূচি ঘোষণা করেছিলেন। কাফন পরে মিছিলও করেছেন। এ কারণে সিলেটের রাজপথ বিএনপি’র পাশাপাশি উত্তপ্ত করে রেখেছিলেন তিনি। সিলেটে আন্দোলন চাঙ্গা করে তোলায় তাকে দমনে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে হিমশিম খেতে হয়। একই সঙ্গে হরতাল পালনে সিলেটে জ্বালাও পোড়াও শুরু করায় একের পর এক মামলা ঝুলতে থাকে তার কাঁধে। সব মিলিয়ে এ পর্যন্ত দ্রুত বিচারসহ মোট ১২টি মামলায় অনুসারীসহ আসামি হয়েছেন এডভোকেট জামান। গ্রেপ্তার এড়াতে তিনি প্রায় ১৫ দিন ধরে আত্মগোপনে রয়েছেন। তবে তার নেতৃত্বাধীন মীরাবাজার গ্রুপটি সক্রিয় রয়েছে। প্রতিটি কর্মসূচি ও প্রতিটি হরতালে তার অনুসারীরা মামলার মধ্যেও মাঠে রয়েছে। এ অবস্থায় দিনারের পরিবার তার বিরুদ্ধে দায়ের করেছে অপহরণ মামলা। দিনারের নিখোঁজের ৪০ দিনের মাথায় ১১ই মে দিনারের স্ত্রী পিংকি ঢাকার উত্তরা থানায় এ মামলা করেন। এই মামলায় সিলেট মহানগর বিএনপি’র সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক ও স্বেচ্ছাসেবকদলের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি এডভোকেট শামসুজ্জামান, সিটি কাউন্সিলর ফরহাদ চৌধুরী শামীম, নাজিম উদ্দিন লস্কর ও ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় নেতা আবদুল আহাদ খান জামালসহ ১৪ জনকে আসামি করা হয়। আর মামলার পর সিলেট বিএনপিতে তোলপাড় চলছে। জামানের অনুসারীরা বিশেষ করে দলের এই ক্রান্তিলগ্নে ক্ষেপেছেন বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আবদুল গফফারের ওপর। আর দিনারের পরিবারের দৃঢ় বিশ্বাস হচ্ছে, জামানের সঙ্গে শত্রুতার কারণেই দিনার নিখোঁজ হয়েছে। তবে, ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় নেতা ও এডভোকেট জামানের রাজনৈতিক একান্ত জন আবদুল আহাদ খান জামাল জানান, দিনার নিখোঁজ হওয়ার ৪০ দিন পর যখন মামলা হলো তখন এমনিতেই ইলিয়াস আলীর খোঁজে আন্দোলনে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছেন জামান। সুতরাং এ মামলায় প্রমাণ করে সরকারের সুবিধা লাভের জন্য দিনারের পরিবারকে দিয়ে মামলা করানো হয়েছে। তিনি বলেন, দিনারের স্ত্রী ইলিয়াস আলীর উপস্থিতিতেই সংবাদ সম্মেলন করে অভিযোগ করেছিলেন দিনারকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ধরে নিয়ে গেছে। আর দলের এ দুর্যোগ মুহূর্তে এ মামলা দলকে শক্তিশালী করার চেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত করবে। এ মামলার পর থেকে নীরব রয়েছে সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপি’র বড় অংশটি। বিএনপি’র নেতারা জানান, জুনায়েদসহ দিনার নিখোঁজ এবং আনসারসহ ইলিয়াস নিখোঁজ দু’টি ঘটনায় তারা হতবাক।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট