Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

ইংল্যান্ড-ও.ইন্ডিজ টেস্ট সিরিজ কাল শুরু

লন্ডন, ১৬ মে: তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ, তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজ ও একটি টি২০ ম্যাচ খেলতে বর্তমানে ইংল্যান্ডে রয়েছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দল। ক্যারিবীয় দলের নেতৃত্বে রয়েছেন ড্যারেন স্যামি। প্রথমে টেস্ট সিরিজে মুখোমুখি হচ্ছে ইংল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ।

বৃহস্পতিবার থেকে লর্ডসে শুরু হচ্ছে তিন টেস্ট সিরিজের প্রথম টেস্ট ম্যাচটি। আর সব ছাপিয়ে এই টেস্টে ইংল্যান্ডের কঠিন বোলিং আক্রমণকে কিভাবে ক্যারিবীয় ব্যাটসম্যানরা মোকাবেলা করে সেটাই এখন চ্যালেঞ্জের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

ইংলিশ মৌসুম শুরুর দিকে যে ধরনের কন্ডিশন থাকে সেটা সাধারনত সিম বোলারদের জন্য দারুণ সহায়ক হয়। সেটাই যদি বজায় থাকে তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের টপ অর্ডারের জন্য এই উইকেটে টিকে থাকাটা কঠিনই হবে। ২০০৯ সালে জ্যামাইকাতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে জয়ের পরে আর কোনো জয় নেই ক্যারিবীয়দের। আর এখন পর্যন্ত ২০ টেস্টে মাত্র দুই জয় নিয়ে এই রেকর্ড আর একটু ভালো করার সম্ভাবনাও এখন চ্যালেঞ্জের মুখে।

গত সপ্তাহে ইংল্যান্ড লায়ন্সের বিপক্ষে নর্দাম্পটনে ১০ উইকেটের পরাজয়ে একমাত্র অর্জন ছিল কিরন পাওয়েলের প্রথম শ্রেণীর ক্রিকেটে দ্বিতীয় শতক। তবে এই ম্যাচে চার নম্বরে নামা ড্যারেন ব্র্যাভো উভয় ইনিংসে করেছেন অর্ধ শতক।

এদিকে পাওয়েলের উদ্বোধনী জুটি আদ্রিয়ান বারাথ এবং ক্রিক এডওয়ার্ডস মিলে নর্দাম্পটনে করেছেন মাত্র ২৬ রান। এছাড়া হোভে সাসেক্সেরে বিপক্ষে দু’জন মিলে করেছেন মাত্র ১৬ ও ৮। তবে টেস্টের আগে সব আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছেন অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান শিবনারায়ন চন্দরপল। যিনি ক্যারিয়ারে বহুবার ওয়েস্ট ইন্ডিজকে তলানি থেকে টেনে তুলেছেন। টেস্টে ১০ম ব্যাটসম্যান হিসেবে দশহাজার রানও করেছেন তিনি। ৩৭ বছর বয়সী এই গায়ানিজ বাঁহাতি ব্যাটসম্যান পাঁচ নম্বরের উপরে সাধারণত ব্যাটিং করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন না। ওয়েস্ট ইন্ডিজের দিক থেকে সমস্যাটা হচ্ছে চন্দরপল যখন ব্যাটিংয়ে নামেন তখন বেশিরভাগ সময়ই দল চাপের মধ্যে থাকে। উদাহরণ হিসেবে বলা যায় সম্প্রতি ডমিনিকায় অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৭৫ রানের পরাজয়ে চন্দরপল যখন নেমেছিলেন তখন দলের স্কোর ছিল ৩ উইকেটে ৭৩ এবং ৩ উইকেটে ৪৫। বেশ কয়েকবার তাকে উপরে খেলানো নিয়ে আলোচনা হলেও চন্দরপলের নিজের ইচ্ছাতেই তা সম্ভব হচ্ছে না। বিষয়টি নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ব্যবস্থাপনা কমিটিও বেশ অস্বস্তিতে রয়েছেন।

এ সম্পর্কে ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান কোচ ওটিস গিবসন বলেছেন, “এই বিষয়টি নিয়ে আমরা বেশ কয়েকবার চিন্তা করেছি। আমাদের ব্যাটিং অর্ডার শিভকে নিয়েই ঘোরপাক খাচ্ছে। এ মুহূর্তে সে যে অবস্থানে খেলে সেটা নিয়েই দারুন স্বস্তিতে আছে এবং সে ভালই করছে। বর্তমানে যেভাবে আছে আমরা বিষয়টি সেভাবেই রাখতে চাই। কিন্তু এটা বাতিল করার মতো কোনো বিষয় নয়।”

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) এ খেলার কারণে আগ্রাসী ব্যাটসম্যান ক্রিস গেইলকে পাচ্ছে না সফরকারী দল। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ডের সাথে বিরোধ কাটিয়ে দীর্ঘদিন পরে ফিরে এসেছেন গেইল। তবে দলের তরুণ ব্যাটসম্যানদের উপর আস্থা রেখেই গিবসন বলেছেন, আমরা জানি এটা তাদের জন্য দারুণ চ্যালেঞ্জের বিষয়। কিন্তু নির্বাচকরা তাদের ওপর আস্থা রেখেছেন, সাথে আমিও।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের বর্তমান দায়িত্ব গ্রহণের আগে গিবসন ইংল্যান্ডের বোলিং কোচ ছিলেন। আর তাই ইংলিশ দুই আক্রমণাত্মক পেসার জেমস অ্যান্ডারসন এবং স্টুয়ার্ট ব্রডকে তিনি নিজ হাতেই শিক্ষা দিয়েছেন। তবে সফরকারী দলের তিন পেস বোলার কেমার রোচ, ফিদেল এডওয়ার্ডস এবং রবি রামপাল ইনজুরি কাটিয়ে দলে ফিরে এসে নিজেদের প্রমাণের অপেক্ষায় রয়েছেন। রোচ গোঁড়ালির, ফিদেল পিঠের এবং রামপাল গলার সমস্যায় ভুগছিলেন।

এদিকে বিশ্বের সেরা টেস্ট দল হিসেবে নিজেদের মাটিতে অনেকদিন পরে কোনো টেস্ট সিরিজ খেলতে পেরে ইংলিশরাও প্রতিপক্ষের উপর আক্রমণ শানাতে মুখিয়ে আছে। তার ওপর সংযুক্ত আরব আমিরাতে সম্প্রতি পাকিস্তানের কাছে ৩-০ ব্যবধানে বিধ্বস্ত হয়ে এবং শ্রীলংকায় ১-১ ব্যবধানে ড্র করে জয়ে থেকে তারা কিছুটা দুরে সরে গিয়েছিল। এ সম্পর্কে ইংলিশ উইকেটরক্ষক ম্যাট প্রায়র বলেছেন, ”আমার মনে হয় না আমাদের প্রমাণের কোনো কিছু আছে। বেশ কিছুদিন ধরেই আমরা ভাল ক্রিকেট খেলছি। শীতকালের আবহ কাটিয়ে আমরা সবাই পারফর্ম করার জন্য মুখিয়ে আছি।”

রবি বোপারার ইনজুরির সুবাদে ইংল্যান্ডের সাবেক উইকেটরক্ষক ডেভিডের ছেলে জোনাথন ব্যারিস্টোকে ছয় নম্বরে প্রথমবারের মতো ইংল্যান্ডের পক্ষে দেখা যেতে পারে। সূত্র: বাসস

ওয়েস্ট ইন্ডিজ: ড্যারেন স্যামি (অধিনায়ক), ক্রিক অ্যাডওয়ার্ডস, আদ্রিয়ান বারাথ, ড্যারেন ব্র্যাভো, শিবনারায়ন চন্দরপল, নারসিং ডিওনারায়ন, ফিদেল এডওয়ার্ডস, আসাদ ফুদাদিন, শ্যানন গ্যাব্রিয়েল, কিরন পাওয়েল, কেমার রোচ, দিনেশ রামদিন (উইকেটরক্ষক), রবি রামপাল, মারলন স্যামুয়েলস ও শেন শিলিংফোর্ড।

ইংল্যান্ড : অ্যান্ড্রু স্ট্রাউস (অধিনায়ক), অ্যালিস্টার কুক, জোনাথন ট্রট, কেভিন পিটারসন, ইয়ান বেল, ম্যাট প্রায়র (উইকেটরক্ষক), স্টুয়ার্ট ব্রড, টিম ব্রেসনান, গ্রায়েম সোয়ান, স্টিভেন ফিন, জেমস অ্যান্ডারসন, জোনাথন ব্যারিস্টো ও গ্রাহাম ওনিয়ন্স।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট