Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

নারায়ণগঞ্জে কলোনি উচ্ছেদকালে পুলিশ-জনতা সংঘর্ষ

নারায়ণগঞ্জে রেলওয়ের বেদখল জমি পুনরুদ্ধারে কলোনি উচ্ছেদ অভিযানকালে পুলিশের সঙ্গে বাসিন্দাদের সংঘর্ষে অর্ধশত আহত হয়েছে। শনিবার সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত চলা এই সংঘর্ষে গোটা এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

জেলা প্রশাসনের নির্বাহী হাকিম আবদুর রউফ তালুকদার জানান, কলোনিবাসীকে উচ্ছেদের নোটিস দেওয়া হলেও তারা না সরে যাওয়ায় উচ্ছেদ অভিযান চালানো হয়। তখন কলোনির বাসিন্দারা উচ্ছেদকারী দলের ওপর হামলা চালায়।

রেলওয়ের বিভাগীয় এস্টেট অফিসার আহমেদুল কবির জানান, এর আগে গত ৯ জানুয়ারি উচ্ছেদ অভিযান চালানো হলেও আবহাওয়াজনিত কারণে এবং স্থানীয় জনপ্রতিনিধির অনুরোধে সে উচ্ছেদ কার্যক্রম বন্ধ রাখা হয় ।

নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি মঞ্জুর কাদের জানান, সকাল ১০টায় উচ্ছেদকারী দল সিরাজউদ্দৌলা সড়কের ফ্রেন্ডস মার্কেটের সামনে গেলে বুলডোজার ও পুলিশ সদস্যদের লক্ষ্য করে ইট ছুড়তে থাকে কলোনিবাসী। এতে বুলডোজার চালক ও এর সহকারী আহত হন। পরে কলোনিবাসী সিরাজউদ্দৌলা সড়কে টায়ারে আগুন ধরিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে। তখন পুলিশ তাদের কয়েকদফা লাঠিপেটা করে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়।

সংঘর্ষে পুলিশসহ অন্তত ৫০ জন আহত হন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ওই এলাকায় বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন হয়েছে।

রেল কর্মকর্তা আহমেদুল জানান, রেলওয়ের স্টেশনগুলো ও রেল লাইনের উভয় পাশে বেদখল হওয়া জমি পুনরুদ্ধারে কাজ শুরু করা হয়েছে। ইতোমধ্যে ঢাকা-টঙ্গী পর্যন্ত ‘ক্র্যাস প্রোগ্রাম’ নেওয়া হয়েছে। মগবাজার পর্যন্ত জমি দখলমুক্ত করা হয়েছে। তিনি জানান, নারায়ণগঞ্জের স্টেশন এলাকায় ও শহর জুড়ে রেলওয়ের জমিতে প্রচুর অবৈধ দখলদার রয়েছে। পর্যায়ক্রমে বেদখল হয়ে যাওয়া জমিগুলো উদ্ধারে কর্মসূচি হাতে নেওয়া হয়েছে।

এদিকে উচ্ছেদ অভিযানে ক্ষতিগ্রস্তরা বিকেলে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে বলেন, হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে এই অভিযান চালানো হয়। স্টেশন কলোনি রক্ষা সংগ্রাম কমিটির আহ্বায়ক কামাল হোসেন দাবি করেন, উচ্ছেদের সময় লুটপাটও চালানো হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ নাগরিক কমিটির সহসভাপতি রফিউর রাব্বী সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ১৮৮২ সালে রেলওয়ে এই জমি জনসাধারণ ও পৌরসভা থেকে অধিগ্রহণ করে। এখন রেলওয়ের কিছু অসাধু কর্মকর্তা ও কর্মচারীর যোগসাজশে অসাধু রাজনীতিক ও ভূমিদস্যুদের সিন্ডিকেট হরিলুট চালাচ্ছে। উদ্ধার হওয়া জমিতে দোকান না বসিয়ে তা জনকল্যাণমূলক কাজে ব্যবহারের দাবি জানান রাব্বী।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট