Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

ক্ষুধামুক্ত বাংলাদেশ গড়ার প্রধান হাতিয়ার শিক্ষা: প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা, ৭ মে: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিক্ষাকে দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার প্রধান হাতিয়ার উল্লেখ করে বলেছেন, তার সরকার এই লক্ষ্য অর্জনে অঙ্গীকারবদ্ধ।
প্রধানমন্ত্রী সোমবার গণভবনে ২০১২ সালের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল গ্রহণকালে আরো বলেন, “শিক্ষার উন্নয়ন ছাড়া দারিদ্র্য বিমোচন সম্ভব নয়। এজন্য এ লক্ষ্য অর্জনে আমরা কঠোর পরিশ্রম করছি।”
শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানে এই ফলাফল প্রধানমন্ত্রীর হাতে তুলে দেন।
শেখ হাসিনা বলেন, তার সরকার শিক্ষার মান উন্নয়নের পাশাপাশি ২০১৪ সালের মধ্যে নিরক্ষরতামুক্ত বাংলাদেশ গড়তে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।
এ প্রসঙ্গে তিনি দেশে শিক্ষার মানোন্নয়নে সরকারের নেয়া বিভিন্ন পদক্ষেপ তুলে ধরেন। এরমধ্যে রয়েছে উচ্চ মাধ্যমিক পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিনামূল্যে বই বিতরণ। উচ্চ মাধ্যমিক পর্যন্ত ছাত্রীদের জন্য বৃত্তি প্রদান, নির্ধারিত সময়ে পরীক্ষা গ্রহণ ও ফলাফল ঘোষণা এবং গরিব ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের জন্য ‘শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট তহবিল’ গঠন।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, তার সরকার বিগত সরকারের আমলে দেশের শিক্ষার হার ৪৫-৪৬ শতাংশ থেকে ৬৫ শতাংশে উন্নীত হয়েছিল। কিন্তু বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলে এই হার ৫০ শতাংশে নেমে এসেছিল। কারণ তারা শিক্ষার উন্নয়নে কোনো কিছুই করেনি।
তিনি এ বছরের এসএসসি পরীক্ষায় কৃতকার্য শিক্ষার্থীদের অভিনন্দন জানান। তিনি শিক্ষার্থীদের ভালো ফলাফল অর্জনে প্রচেষ্টার জন্য শিক্ষকদেরও ধন্যবাদ জানান।
চলতি বছরের এসএসসি পরীক্ষার ফলাফলে সন্তোষ প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আমাদের শিক্ষার্থীরা মেধাবী। স্বল্প সুযোগের মধ্যেও তারা ভালো করতে পারে।”
তিনি বলেন, “এই ফলাফল খুবই সন্তোষজন। কারণ এ বছর নকলমুক্ত পরিবেশে পরীক্ষা হয়েছে।”
শেখ হাসিনা বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশকে আলোকিত ও মর্যাদাপূর্ণ দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে আরো ভালো ফলাফলের জন্য লেখাপড়ায় অধিক মনোযোগী হতে শিক্ষার্থীর প্রতি আহবান জানান।
তিনি বলেন, “বর্তমান সরকার বাংলাদেশকে আধুনিক শিক্ষাসম্বলিত একটি প্রযুক্তিগতভাবে অগ্রসর দেশ হিসেবে গড়ে তোলার মাধ্যমে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠায় কাজ করে যাচ্ছে।”
এর আগে প্রধানমন্ত্রী অনলাইনে বরিশাল জিলা স্কুল, বরিশাল গার্লস হাইস্কুল এবং বরিশাল কারিগরি স্কুল ও কলেজের ফলাফল ঘোষণা করেন।
অনুষ্ঠানে শিক্ষা সচিব কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী, প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব আবুল কালাম আজাদ, ১০ শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের মেয়র শওকত হোসেন হিরন, বরিশাল-১ আসন থেকে নির্বাচিত সংসদ সদস্য তালুকদার মো. ইউনুস, বরিশালের বিভাগীয় কমিশনার আবু হেনা মো. রহমতুল্লাহ মুনিম এবং বরিশাল জেলা স্কুল, বরিশাল গার্লস হাইস্কুল ও বরিশাল কারিগরি স্কুল ও কলেজের প্রধানরাও ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বক্তৃতা করেন।
প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বরিশালের লোকদের সঙ্গে আলাপকালে বলেন, তার সরকার বরিশালসহ দেশের দক্ষিণাঞ্চলের উন্নয়নে ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। এ অঞ্চল দীর্ঘকাল অবহেলিত ছিল। সূত্র: বাসস

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট