Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

রাজশাহীতে ঝাড়ু মিছিল বিদ্যুৎ ভবন ঘেরাও

রাজশাহী থেকে: ঘন ঘন বিদ্যুতের লোডশেডিং বন্ধ, ত্রুটিপূর্ণ ডিজিটাল মিটার স্থাপন বন্ধ ও বিদ্যুৎ বিভাগের প্রধান প্রকৌশলীর অপসারণ দাবিতে রাজশাহীতে ঝাড়ু মিছিল, বিক্ষোভ সমাবেশ ও বিদ্যুৎ ভবন ঘেরাও কর্মসূচি পালিত হয়েছে। গতকাল দুপুরে বিদ্যুৎ ভবনের সামনে রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের ব্যানারে এ কর্মসূচি পালন করা হয়। এর আগে নগরীর সাহেব বাজার বড় মসজিদের সামনে থেকে একটি ঝাড়ু মিছিল বের করা হয়। বিক্ষোভ মিছিলে বিভিন্ন পেশার নারী ও পুরুষ অংশ নেন।
পরে বিদ্যুৎ ভবন ঘেরাও ও বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা অবিলম্বে রাজশাহী থেকে প্রধান প্রকৌশলী স্বপন কুমার রায়কে অপসারণের দাবি জানান। অন্যথায় যে কোন প্রকারে রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদ তাকে রাজশাহী থেকে বিতাড়ন করবে বলেও হুঁশিয়ারি দেন। একই সঙ্গে রাজশাহী নগরীতে এনালগ মিটার পরিবর্তন করে ত্রুটিপূর্ণ ডিজিটাল মিটার স্থাপন বন্ধসহ নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের জোর দাবি জানানো হয়।
রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি লিয়াকত আলীর সভাপতিত্বে বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জামাত খান, বিশিষ্ট শিল্পপতি ও আওয়ামী লীগ নেতা মোহাম্মদ আলী সরকার, রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, মহানগর বিএনপি নেতা শফিকুল ইসলাম শাফিক, ওয়ার্কার্স পার্টির মহানগর সম্পাদক এডভোকেট এন্তাজুল হক বাবু, দেবাশিষ প্রামাণিক দেবু, রাজশাহী চেম্বার অব কমার্সের সাবেক সভাপতি আবু বাক্কার আলী, সিপিবি’র রাজশাহী মহানগর সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, ন্যাপ নেতা মুস্তাফিজুর রহমান খান আলম প্রমুখ। বক্তারা অবিলম্বে ত্রুটিপূর্ণ ডিজিটাল মিটার স্থাপনের চেষ্টা বন্ধসহ রাজশাহী নগরীর কলকারখানা চালু রাখতে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের দাবি জানান।
এসময় বিদ্যুৎ ভবনের সামনে বিক্ষোভকারীরা প্রধান প্রকৌশলীসহ বিদ্যুতের দুর্নীতিতে জড়িত কতিপয় নির্বাহী প্রকৌশলীদের প্রতি থু থু নিক্ষেপ করে ঘৃণা প্রকাশ করেন। বক্তারা অভিযোগ করেন, সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করতে বিদ্যুৎ বিভাগের প্রকৌশলীরা ক্রটিপূর্ণ ডিজিটাল মিটার স্থাপনের পাঁয়তারা করছেন। রাজশাহীর কাটাখালিতে বিদ্যুতের প্লান্ট নির্মাণে ব্যাপক দুর্নীতি হলেও কোন তদন্ত কমিটি গঠন না হওয়ায় নেতৃবৃন্দ ক্ষোভ প্রকাশ করেন। তারা বলেন, বিদ্যুতের লোডশেডিং মারাত্মক আকার ধারণ করেছে। ছেলেমেয়েরা পড়াশোনা করতে পারছে না। কলকারখানায় উৎপাদন ব্যাহত হচ্ছে। ব্যবসায়ীরা ক্ষতির মুখে পড়েছেন।
বক্তারা উল্লেখ করেন, বিদ্যুতের কারণে গত তিনমাস ধরে আন্দোলন সংগ্রাম করে আসলেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না। রাজশাহী সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন, সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা, ওমর ফারুক চৌধুরীকে স্মারকলিপি দিলেও কোন পদক্ষেপ নেয়া হয়নি। বরং তাদের উপেক্ষা করে ত্রুটিপূর্ণ মিটার বসানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। এতে ভৌতিক বিলের সমস্যয় গ্রাহকরা পড়বেন বলে আশঙ্কা করছেন।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট