Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

স্বাগত হিলারি রডহ্যাম ক্লিনটন: কিছুক্ষণের মধ্যে বাংলাদেশ-আমেরিকা দ্বিপাক্ষিক বৈঠক

ঢাকা, ৫ মে: বহু প্রতীক্ষিত সফরে ঢাকা এসেছেন আমেরিকার পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটন। তাকে বহনকারী বিশেষ বিমানটি বেইজিং থেকে উড়ে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছায় চারটা ৪০ মিনিটে।

বিমানবন্দরে হিলারিকে স্বাগত জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. দীপু মনি। তাকে লাল গালিচা সংবর্ধনা দেয়া হয়। বিমানবন্দর থেকে বের হওয়ার আগে আমেরিকার দক্ষিণ এশিয়া বিষয়ক সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী রবার্ট ও’ ব্লেক হিলারিকে বয়ে আনা বিমানটিতে প্রাথমিক আলোচনা করছেন বলে জানা গেছে। পরে সরাসরি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে চলে যান।

সফরসূচি অনুসারে, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করবেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী দীপু মনির সঙ্গে। পরে সৌজন্য সাক্ষাত করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে। সেখানে যৌথ ঘোষণার পর হবে যৌথ সংবাদ সম্মেলন। রাত সাড়ে আটটায় যাবেন বিরোধী দলের নেতা বেগম খালেদা জিয়ার গুলশানের বাসভবনে সাক্ষাৎ করতে।

আগামিকাল রোববার সকাল সাড়ে নয় টায় যাবেন রাষ্ট্রদূতের বারিধারার বাসভবনে। ড. ইউনূস ও স্যার ফজলে হাসান আবেদের সঙ্গে বৈঠক করবেন। সেখান থেকে বিকাল সাড়ে এগারোটায় যাবেন আমেরিকান দূতাবাসে। স্থানীয় সুশীল সমাজ ও এনজিও ব্যক্তিদের সঙ্গে মতবিনিময় করবেন। পরে দুপুর ১২ টা ১০ মিনিটে চলে যাবেন কলকাতার উদ্দেশ্যে।

আমেরিকার ফার্স্ট লেডি হিসাবে আগে দু’বার বাংলাদেশ সফর করলেও পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসাবে হিলারি ক্লিনটনের এটাই প্রথম সফর। ওবামা প্রশাসনের প্রভাবশালী এ রাজনীতিকের সুজলা-সুফলা, শস্য-শ্যামল বাংলার প্রতি রয়েছে গভীর অনুরাগ। তিনি এসেছেন  ঢাকা- ওয়াশিংটন সম্পর্ক উন্নয়নের নতুন বারতা নিয়ে।

পররাষ্ট্র দপ্তরের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, দু’দেশের নিয়মিত যোগাযোগে ‘অংশীদারি সংলাপ’-এর ঘোষণা আসবে এ সফরে। একই সঙ্গে বাণিজ্য ও বিনিয়োগ সহযোগিতা রূপরেখা চুক্তি (টিকফা) সই হচ্ছে না। আর বাংলাদেশের পক্ষ থেকে দাবি তোলা হবে মার্কিন বাজারে বাংলাদেশের পণ্যের শুল্কমুক্ত সুবিধা, বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত খুনি রাশেদ চৌধুরীকে দেশে ফিরিয়ে আনা এবং বিশেষায়িত মার্কিন সহায়তা তহবিল মিলেনিয়াম চ্যালেঞ্জ অ্যাকাউন্টে (এমসিএ) অন্তর্ভুক্তিতে।

কূটনৈতিক সূত্রগুলো বলছে, প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে নাগরিক প্রতিনিধি- হিলারি ক্লিনটনের সফরের সব আলোচনায় দ্বিপক্ষীয় বিষয়ের পাশাপাশি দেশের বিদ্যমান পরিস্থিতি স্থান পাবে বলে বলে জানা গেছে। মানবাধিকার ও আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির আলোচনা গুরুত্ব পেতে পারে। আসতে পারে সরকারের সুশাসনের প্রতিশ্রুতি এবং বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের ওপর দমন-পীড়নের প্রসঙ্গও।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট