Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

শ্রমিকদের উন্নয়নের জন্যই আমাদের রাজনীতি: প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা, ১ মে: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, “শ্রমিক ও মেহনতি মানুষ যারা প্রতিনিয়ন জীবনযুদ্ধে অবতীর্ণ হচ্ছেন, তাদের জীবনমানের উন্নয়নের জন্যই আমাদের রাজনীতি।”

 

মঙ্গলবার মে দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।

 

মে দিবস উপলক্ষে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে এই আলোচনা সভার আয়োজন করে। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য ‘মালিক-শ্রমিক একতা, শিল্পোন্নয়নের মূল কথা’।

 

শ্রমিক অধিকার সংগঠনগুলোর উদ্দেশে শেখ হাসিনা বলেন, “আমরা আপনাদের সব দাবি দাওয়া পূরণ করছি। শিল্প কল-কারখানা টিকে থাকলে শ্রমের প্রসার ঘটবে। শ্রমিক ভাইদের বলব, আপনাদের যে কোনো সমস্যা হলে তা পূরণ করছি। কিন্তু, সরকারের দিকটাও দেখতে হবে। আমরা চাই শ্রমিকদের জীবন স্বচ্ছল ও উন্নত হোক।”

 

একইসঙ্গে শ্রমিকদেরও শিল্পের প্রতি যত্নবান হওয়ার, দেশের রফতানি বাজার সচল রাখার আহবান জানান তিনি।

শিল্প মালিকদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “যদি শিল্পের পরিবেশ ও উৎপাদন নিশ্চিত করতে চান, তাহলে শ্রমিকদের সুখ-দুঃখের সাথী হতে হবে। তাদের খাদ্য, বাসস্থান ও চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হবে।”

প্রধানমন্ত্রী বলেন, “বাংলাদেশ বিশ্ব সভায় মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়েছে। বিশ্বব্যাপী মর্যাদা পাচ্ছে। বাংলাদেশ বিশ্বে উন্নয়নের মডেল হয়েছে- তা ধরে রাখতে হবে।”

তিনি বলেন, “স্বাধীনতার পর জাতির পিতা মে দিবসে সরকারি ছুটি ঘোষণা করেন। সংবিধানের ১৪ ও ১৯ অনুচ্ছেদে মেহনতি মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠা করেন। পরিত্যক্ত মিল-কারখানা, ব্যাংক, বীমা জাতীয়করণ করে পুনরায় চালু করেন। মজুরি কমিশন গঠন করেন।”

আর আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকার রফতানি বাড়ানোর লক্ষ্য নিয়েই শিল্প-কলকারখানা গড়ে তোলার দিকে নজর দিচ্ছে বলে প্রধানমন্ত্রী জানান।

তিনি বলেন, তার সরকারের লক্ষ্য হলো গ্রামীণ অর্থনীতিকে শক্তিশালী করা, কেননা গ্রামের মানুষের ক্রয় ক্ষমতা যত বাড়বে, উৎপাদনও তত বাড়বে।

আলোচনা সভায় বক্তৃতা করার আগে অনলাইনে ট্রেড ইউনিয়ন রেজিস্ট্রেশন ও ফ্যাক্টরি রেজিস্ট্রেশন এবং মে দিবস মেলার উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী।

শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেনের সভাপতিত্বে এই অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মুন্নুজান সুফিয়ান, শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ইসরাফিল আলম, বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা আইএলও’র প্রতিনিধি আন্দ্রে বোগুই, এমপ্লয়ার্স ফেডারেশনের সভাপতি ফজলুল রহমান এবং জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি আব্দুল মতিন মাস্টার বক্তব্য রাখেন।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট