Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

ফার্মগেটে মাঠ আওয়ামী লীগের দখলে

পিকেটার নেই। তাই পিকেটিংও নেই। মাঠে বিএনপি বা হরতাল সমর্থক কাউকে দেখা যায়নি। মিছিলেরও চেষ্টা করেনি কেউ। পুলিশ কয়েকটি পয়েন্টে অলস সময় কাটাচ্ছে। যানবাহনের সংখ্যা একেবারেই কম হলেও চলাছলে কোন বাধা নেই। ট্রাফিক সিগনালও নেই রাজধানীর ব্যস্থতম এই এলাকায়। দৃশ্যটি ফার্মগেটের। সিগনালের প্রয়োজন না থাকায় ট্রাফিক পুলিশও নেই। রাস্তায় এলোপাতাড়ি ভাবে চলছে গাড়ি। উইটার্ন নিষিদ্ধ থাকলেও মানার কোন তাগিদ নেই। যেহেতু রাস্তা যানবাহন শুন্য তাই ওভারব্রিজ না ব্যবহার করে সাধারণ পথচারী রাস্তা পারাপার হচ্ছেন নিচ দিয়েই। ফার্মগেটে সকাল ১০ টা পর্যন্ত পিকেটার, বিএনপি সমর্থক বা আওয়ামী লীগের কোন নেতাকর্মীকে দেখা যায়নি। দুয়েকটি গাড়ি চলাচল ছাড়া রাস্তা ছিল একেবারেই ফাঁকা। ১০ টার পর আসেন আওয়ামী লীগ তেজগাও থানা ও ২৬ নম্বর ওয়ার্ডের নেতাকর্মীরা। তারা জড়ো হন আল রাজী হাসপাতালের সামনে। মহানগর আওয়ামী লীগের সদস্য মোজাম্মেল হোসেন, ২৬ নং ওয়ার্ডের সভাপতি নুরুল হক জিল্লু, সাধারণ সম্পাদক সাহাবুদ্দিন সহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্র লীগের নেতারা সেখানে অবস্থান নেন। ১২টার দিকে আসেন স্থানীয় এমপি ও তেজগাঁও থানা আওয়ামী লীগের আসাদুজ্জামান খান কামাল। তিনি সেখানে নেতাকর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে ঘণ্টাখানেক অবস্থান করেন। এ সময় তিনি হরতালে অপ্রীতিকর ঘটনা রোধে নেতাকর্মীদের সতর্ক অবস্থানের জন্য ধন্যবাদ জানান। বিএনপির দ্বিতীয় দফা হরতালের দিন এ এলাকার দোকানপাট খুব একটা খুলেনি। অনেক মার্কেট বন্ধ ছিল। প্রয়োজন ছাড়া কেউ বাসা থেকেও বের  হচ্ছেন না। অন্যান্য দিনের মতো আনন্দ সিনেমা হলের সামনে বিভিন্ন রুটের যাত্রীদের কোন জটলাও নেই।  আশাপাশে লেগুনা ও সিএনজি অটোরিঙার জ্যাম থাকলেও আজ সেখানটা প্রায় ফাঁকা। কিছু রিঙা ও হকাররা সেখানটার দখল নিয়েছে। ওভার ব্রিজ কিংবা সিজান পয়েন্ট থেকে তেজগাঁও কলেজ পর্যন্ত হকারদের হাঁক-ঢাকও নেই। হরতালে একেবারেই শান্ত রয়েছে ফার্মগেট এলাকা।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট