Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

বাংলাদেশে গুম: হিউম্যান রাইটস ওয়াচ’র তদন্ত দাবি

ঢাকা, ২৭ এপ্রিল: বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সম্পাদক এম ইলিয়াস আলীসহ রাজনৈতিক কর্মীদের একের পর এক ‘গুম’ হওয়ার ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে অবিলম্বে নিরপেক্ষ ও স্বাধীন তদন্তের দাবি জানিয়েছে নিউ ইয়র্কভিত্তিক মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটস ওয়াচ (এইচআরডব্লিউ)। শুক্রবার এক বিবৃতিতে তারা এ দাবি জানায়।

 

এম ইলিয়াস আলীসহ বিরোধী দলীয় নেতাকর্মীদের নিখোঁজ হওয়ার ঘটনায় সরকারকে অবশ্যই ব্যবস্থা নিতে হবে বলে উল্লেখ করা হয় ওই বিবৃতিতে।

গত ১৭ এপ্রিল মধ্যরাতে রাজধানীর মহাখালী এলাকা থেকে নিখোঁজ হন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক সংসদ সদস্য এম ইলিয়াস আলী। পুলিশ ওই রাতে তার গাড়িটি পরিত্যক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে। ইলিয়াসের সঙ্গে নিখোঁজ হন তার গাড়ির চালক আনসারও। গত ১০ দিন ধরে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়েও তাকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।

সরকারের বাহিনীই ইলিয়াসকে ‘গুম’ করেছে- এমন অভিযোগ এনে গত রোববার থেকে টানা তিনদিন সারাদেশে হরতাল করেছে বিএনপি। শনিবারের মধ্যে তাকে পাওয়া না গেলে নতুন করে হরতালের ডাক দেবে বলেও জানিয়েছে দলটি।
হিউম্যান রাইটস ওয়াচ বলেছে, “সাম্প্রতিক দিনগুলোতে বাংলাদেশে বিরোধীদলীয় নেতা ও রাজনৈতিক কর্মীদের নিখোঁজ হওয়ার ঘটনা উদ্বেগজনক হারে বেড়ে গেছে। ইলিয়াস আলীর অন্তর্ধানও এমনই একটি ঘটনা।”

আইন ও সালিশ কেন্দ্রের পরিসংখ্যানের বরাত দিয়ে বলা হয়েছে, “কেবল ২০১২ সালেই কমপক্ষে ১২ জন এভাবে ‘নিখোঁজ’ হয়েছেন। বাংলাদেশের আরেক মানবাধিকার সংস্থা অধিকারের হিসাব অনুযায়ী, ২০১০ সালের পর থেকে এ পর্যন্ত ‘গুম’ হয়েছেন অন্তত ৫০ জন।”

এইচআরডব্লিউর এশিয়া অঞ্চলের পরিচালক ব্র্যাড অ্যাডামস বিবৃতিতে বলেন,“এই যে ক্রমবর্ধমান নিখোঁজ হওয়ার ঘটনা, বিশেষ করে বিরোধীদলীয় সদস্যদের উধাও হয়ে যাওয়া- এর গ্রহণযোগ্য ও স্বাধীন তদন্ত হওয়া প্রয়োজন।”

তিনি বলেন, “সরকার এ পর্যন্ত ‘নিখোঁজ’ হওয়ার ঘটনাগুলোর তদন্তে কোনো কার্যকর উদ্যোগ নেয়নি। এ ধরনের ঘটনা বন্ধেরও কোনো পদক্ষেপ দেখা যায়নি।”

এইচআরডব্লিউর বিবৃতিতে বলা হয়, ইলিয়াস আলী ‘নিখোঁজ’ হওয়ার ঘটনায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পুলিশকে তদন্তের দায়িত্ব দিয়েছেন। তবে তিনি এও বলেছেন যে, সরকারের বিরুদ্ধে ‘আন্দোলনের ইস্যু’ তৈরি করতে দলের নির্দেশেই ইলিয়াস লুকিয়ে আছেন বলে তিনি মনে করেন।

“শেখ হাসিনার সরকার বহুবার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে- নির্যাতনের সংস্কৃতি বন্ধ করে সুবিচার ও জবাবদিহিতা প্রতিষ্ঠা করা হবে। কিন্তু এরপরও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর নির্যাতনের সব অভিযোগই সরকার ক্রমাগতভাবে অস্বীকার বা উপেক্ষা করে আসছে। আর এ কারণেই জরুরি ভিত্তিতে ‘নিখোঁজ হওয়ার’ সব ঘটনার স্বাধীন তদন্ত প্রয়োজন”, বলেন অ্যাডামস।

বিরোধী দলের হরতালের সময় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর ‘অত্যাধিক শক্তিপ্রয়োগের’ ঘটনাতেও উদ্বোগ প্রকাশ করেছে এইচআরডব্লিউ।

এর আগে গত ৪ এপ্রিল শ্রমিক নেতা আমিনুল হকের ‘নিখোঁজ’ বা ‘গুম’ হওয়ার ঘটনায়ও উদ্বেগ জানিয়েছিল এইচআরডব্লিউ।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট