Widgetized Section

Go to Admin » Appearance » Widgets » and move Gabfire Widget: Social into that MastheadOverlay zone

পরাজয়ের বৃত্তে থাকা ডেকানের মঙ্গলবারের প্রতিপক্ষ কলকাতা

কলকাতা, ২৩ এপ্রিল: আইপিএল-৫-এ পরাজয়ের বৃত্তে ঘুরপাক খাচ্ছে ডেকান চার্জার্স। অন্যদিকে জয়ের ধারায় রয়েছে শাহরুখ খানের কলকাতা নাইট রাইডার্স। মঙ্গলবার দুই দল কলকাতার ইডেন গার্ডেনসে মুখোমুখি হচ্ছে। ডেকানের বিপক্ষে ঘরের মাঠে কলকাতা নাইট রাইডার্স জয় ছাড়া অন্য কোনো কিছুই ভাবছে না।

 

গত পাঁচ ম্যাচের চারটিতে জয় পাওয়া কেকেআর জানান দিচ্ছে যে, এবারের আসরে তারা ফেলনা নয়। কিন্তু একটু ভালো করে তাকালেই বোঝা যায় যে, তারকা ব্যাটসম্যান সমৃদ্ধ কলকাতার দলটার দুশ্চিন্তা এই ব্যাটিং লাইন আপ নিয়ে।

 

সাবেক আইপিএল চ্যাম্পিয়ন ডেকান চার্জার্স দলগতভাবে জ্বলে ওঠার ক্ষমতা এখনো দেখাতে পারেনি। ফিল্ডারদের ব্যর্থতায় বেশ কয়েকটি ম্যাচে পরাজয়ের তেতো স্বাদ পেয়েছে তারা। ইতোমধ্যে টানা পাঁচটি ম্যাচে পরাজিত হওয়া ডেকানরা লীগ পর্যায় পার হওয়ার স্বপ্ন দেখলে সামনের এগারোটি ম্যাচেই তাদেরকে কঠিন পরীক্ষার মুখোমুখি হতে হবে।

 

কলকাতার বিপক্ষে ম্যাচে ১২৭ রানের পুঁজি নিয়েও লড়াই করে শেষ ওভারের আগের ওভার পর্যন্ত ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ ছিল ডেকান চার্জার্সের হাতে। কিন্তু এই অবস্থায় আনন্দ রাজনের হাত থেকে দেবব্রত দাসের ক্যাচ পড়ে গেলে শেষ ওভারে জয় পায় কেকেআর। অবশ্য বরাবরের মতই সেই ম্যাচেও কলকাতার টপ অর্ডার ছিল ব্যর্থতার প্রতিমূর্তি। ছোট সংগ্রহ তাড়া করতে গিয়েও কলকাতার ব্যাটসম্যানরা যেভাবে হাঁসফাঁস করেছে তাতে করে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের বিপক্ষে ম্যাচের পুনরাবৃত্তি ঘটার আশঙ্কা ছিল। লো-স্কোরিং সেই ম্যাচে মাত্র দুই রানের জন্য হেরে যায় কেকেআর। ডেকানের ফিল্ডারদের ব্যর্থতার কারণে এবার অবশ্য পার পেয়ে গেছে কলকাতা। নাইটদের অধিনায়ক গৌতম গম্ভীর ব্যাটসম্যানদের কাছ থেকে আরো ভালো নৈপূণ্য প্রত্যাশা করছেন।

 

নাইটদের অলরাউন্ডার ইউসুফ পাঠান এখনো পর্যন্ত তার ২.১ মিলিয়ন ডলারের মূল্যটার যথাযথ প্রতিদান দিতে পারেননি। সাত ম্যাচে ৫.৮০ গড়ে ইউসুফের সংগ্রহ মাত্র ২৯ রান। রাজস্থান রয়্যালসের হয়ে আইপিএল-এর প্রথম আসরে তুরুপের তাস হয়ে ওঠা বরোদার এই অলরাউন্ডারের ব্যাট থেকে কলকাতা নাইট রাইডার্স একটা অর্ধশত রানেরও ইনিংস পায়নি। গত রোববার লো-স্কোরিং ম্যাচে ইউসুফ পাঠানকে ব্যাটিং অর্ডারের পাঁচ নম্বর স্থানে উঠিয়েও সাফল্য পায়নি কলকাতার থিংক ট্যাংক। গত ছয়টি ম্যাচেই তিনি ছিলেন ব্যর্থতার প্রতিমূর্তি। ইডেনে নিজেদের দর্শকদের সামনে ডেকান চার্জার্স এবং রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুর দলের বিপক্ষে দুটো গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ খেলবে নাইটরা। ব্যাটিং লাইন আপের শক্তি বাড়াতে ইউসুফ পাঠানের জায়গায় মঙ্গলবার অন্য কাউকে দেখা যেতে পারে। ব্যাটিং লাইনআপ বারবারই ব্যর্থ হচ্ছে বিধায় কলকাতার ইংলিশ রিক্রুট ইয়ন মরগ্যান ঠাঁই পেতে পারেন প্রথম একাদশে। এখানেও সমস্যা আছে। আইপিএল-এর আইন অনুযায়ী প্রথম একাদশে যেকোনো দলে মাত্র চারজন বিদেশী ক্রিকেটারকে রাখা যাবে।  নাইটদের পক্ষে যুৎসই একটা কম্বিনেশন বের করতে পারাটা খুবই দুরুহ কাজ।

 

এ পর্যন্ত কলকাতার হয়ে ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কার পেয়েছেন লক্ষ্মীপতি বালাজি, সাকিব আল হাসান, সুনীল নারাইন এবং ব্রেট লি। বারাবাতি স্টেডিয়ামে ডেকান চার্জার্সের বিপক্ষে নিজের কোটার শেষ দুই ওভারে মাত্র চার রান দেন ব্রেট লি। তার করা পঞ্চদশ এবং সপ্তদশ ওভারই চার্জার্সদের বিপক্ষে জয়ের ব্যবধান গড়ে দেয়।

 

ইডেনের পিচ বরাবরই ধীরগতির। যে কারণে ক্যারিবিয়ান অফ স্পিনার সুনীল নারাইনের সাথে বাংলাদেশের বাঁহাতি স্পিনার এবং আইসিসির সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানকে প্রথম একাদশে রাখবে কলকাতা নাইট রাইডার্স।

 

অন্যদিকে পাঁচটি ম্যাচে পরাজয়ের তেতো স্বাদ পাওয়া ডেকান চার্জার্সদের পক্ষে ঘুরে দাঁড়ানোটা কঠিন হবে। বিশেষ করে অধিনায়ক কুমার সাঙ্গাকারাই আছেন চাপের মুখে। পাঁচটি পরাজয়ের মধ্যে অন্তত চারবার ডেকান চার্জার্সের নিয়ন্ত্রণে ছিল ম্যাচ। এই অবস্থা থেকে হেরে যাওয়াটা দলের ক্রিকেটারদের মর্মপীড়ার কারণ হয়ে দাড়িয়েছে।

 

শেষ ম্যাচে গুরুত্বপূর্ণ একটা মুহূর্তে কলকাতা নাইট রাইডার্সের দেবব্রত দাসের ক্যাচ তালুবন্দি করতে ব্যর্থ হন ডেকানের ফিল্ডার। দিল্লি ডেয়ারডেভিলসের বিপক্ষে ম্যাচে কেভিন পিটারসেনকে তিনবার তালুবন্দি করতে ব্যর্থ হন ডেকান চার্জার্সের ফিল্ডাররা। হতাশায় কোচ ড্যারেন লেহম্যান বলেছেন যে, এদের ফিল্ডিং অনুর্ধ্ব-১৪ দলের ফিল্ডারদের চেয়েও খারাপ।

Share this:
Share this page via Facebook Share this page via Twitter

LIKE US on FACEBOOK নিউজ সোর্স b24/মজ / ডেস্ট